~ সংস্কার

~ রফিকুল ইসলাম শিক্ষক

~ তারিখ 14th November, 2016


আমাদেরই ছোট্ট সে মিনু জন্মেছিলো দুলের ঘরে
নিচু জাত বলে , আঁধারে লুকায়ে বেড়েছিল শুধু মায়েরই কোলে |
স্নিগ্ধ বাতাস , আকাশে মেঘের বারিধারা , গঙ্গার পবিত্রতা , সবই ছিল তার
ছিল না নাম তার শুধু সমাজের পাতায় |
আওটা দুধে চুমু দিয়ে , অনাচারের গল্প বলে
বিধানদাতা মিনুকে যে কাদায় |

একাদশীর গ্রহ জালে , বিধবারই পেঁয়াজ ঝোলে
সমাজপতি ঘুরে ফিরে তাকায় |
তাকায় না যে ধুঁকছে বসে , দেখছে চোখে সর্ষে ও সে
যুগের তালে নিয়ম টাকে একটু করি যাচাই |
আড়াই দিস্তে লুচির লোভে নাই বা গেলাম সেথায়
মিনু না হয় একটু ভেবে পার পাবে যে হেথায় |

বলে কিনা পালতে হবে সবটাই একটুখানি বেতাল হলে
জাত যাবে যে কোথায় ?
এই না দেখে মিনু যখন ঝলকে উঠে গর্জে
জাতটা না হয় নিলেই কেড়ে ভাত টাই দাও মোর যে |
কিডন্যাপ আর বধূ হত্যায় বিশ্ব যখন ধুঁকছে
সংসারটাও আষ্টে-পিষ্টে বাঁধছে কষে সেই যে |

বিশ্বনাথ ও দেখেই চলে বিধানদাতার খেলা
কবে যে তার জাগবে চেতন সঙ্গে হবে লীলা |



মন্তব্য যোগ করুন


কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।


*


spacebar অথবা tab টিপুন বাংলায় রূপান্তর করতে

*



*

spacebar অথবা tab টিপুন বাংলায় রূপান্তর করতে


মন্তব্যসমূহ

কোন রেকর্ড নেই
সার্চ করুন বাঙালি কবিদের কবিতা

  
spacebar অথবা tab টিপুন বাংলায় রূপান্তর করতে

  
পোস্ট তারিখ